Wednesday, 16 March 2016

চারদিকে এখন তার জয়জয়কার

আইসিসি ওয়ার্ল্ড টোয়েন্টি২০ আসরে ব্যাট হাতে ঝড় তুলেছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের বাঁ-হাতি ওপেনার তামিম ইকবাল। চারদিকে এখন তার জয়জয়কার। শুধু বাইশ গজে নয়, ২৬ বছর বয়সী এই তারকা আলো ছড়িয়েছেন মাঠের বাইরেও। বিজ্ঞাপন ভুবনে তার ব্যাপক চাহিদা।

গোল্ডমার্ক বিস্কুটের একটি বিজ্ঞাপনে চিত্রশিল্পী, রাঁধুনি ও বেহালাশিল্পীর ভূমিকায় তামিমের হাস্যরসধর্মী উপস্থিতি দর্শকদের আনন্দ দিয়েছে। ‘আমি জিতলেই জিতে যায় মা’, ‘আড়াই টাকার জিনিস হাজার টাকার ফায়দা’, ‘সব বকওয়াস বন্ধ’, ‘বয়স তো মাত্র ২৩, এখন না পটালে কখন?’- তার আওড়ানো এসব সংলাপ ভক্ত, সমর্থক ও দর্শকের মুখে মুখে শোনা যায়। তার সর্বশেষ যে দুটি বিজ্ঞাপন পর্দায় এসেছে সেসব নিয়ে বলি। 

দূরবীনে চোখ রেখে দূর গাঁয়ের এক শিশুর চড়াই-উতরাই দেখছেন তামিম ইকবাল। আলোর অভাবে ঠিকভাবে পড়াশোনা করতে না পারায় শিক্ষকের বকা খেতে হয় শিশুটিকে। তাই বুদ্ধি খাটিয়ে পানির বোতলকে কাজে লাগাতে হার্ডওয়্যার দোকান থেকে কয়েকটি ইলেক্ট্রিক জিনিস কিনে আনেন তামিম। দোকানিকে অবশ্য ঠিকই অটোগ্রাফ দিতে হয়েছে তাকে। ঘরে ফিরে তিনি হয়ে যান মেকানিক্যাল। 

ফ্রেশ প্রিমিয়াম টি’র নতুন বিজ্ঞাপনে রয়েছে এই গল্প। ২ মিনিট ২০ সেকেন্ড ব্যাপ্তির বিজ্ঞাপনটি নির্মাণ করেছেন হাসান তৌফিক অঙ্কুর। এর জিঙ্গেল লিখেছেন আসিফ ইকবাল। কথাগুলো এমন- ‘মন যখনই না পারারই ব্যথা নিয়া কান্দে/ইচ্ছগুলো জেদের বশে ধীরে জমাট বান্ধে/ছটফটে এই মন পাখিটা ওড়াল দিতে চায়/ওড়াল দিতে চায়, ওড়াল দিতে চায়/আলোরই আশায়, আলোরই আশায়... ছোট ছোট চোখে ওই স্বপ্ন খেলা করে/ব্যথা মুছে কবে বলো আসবে আলো করে/শেকল ভাঙা জেদে আমার সময় কেটে যায়, আলোরই আশায়...’

এদিকে গত বছরের ডিসেম্বরে নিজের মায়ের গল্প নিয়ে সাজানো বিজ্ঞাপনে মডেল হয়ে প্রশংসিত হন তামিম। এতে তার ক্রিকেটার হওয়ার লড়াই, নার্ভাস নাইনটিজে পড়ার পর মায়ের দুশ্চিন্তার দিকগুলো দর্শককে আবেগপ্রবণ করেছে। ফ্রেশ ফুল ক্রিম মিল্ক পাউডারের বিজ্ঞাপনটির নির্দেশনা দিয়েছেন অমিতাভ রেজা। তার নির্দেশনায় ম্যাক্স ফেয়ারনেস মাল্টি এক্সপার্ট ও গ্রামীণফোন ইন্টারনেট ফর অল বিজ্ঞাপনেও মডেল হন তামিম। 

সাকিব ফাহাদের নির্দেশনায় গোল্ডমার্ক বিস্কুট, গাজী শুভ্রর নির্দেশনায় ফেয়ার অ্যান্ড লাভলী ম্যাক্স ফেয়ারনেস ও ম্যাক্স ফেয়ারনেস ফেসওয়াশ, আহমেদ জামান সঞ্জীবের নির্দেশনায় স্যানমার মহানগর গ্রিন পার্ক, নকিয়া, গ্রামীণফোন দেয়ার খুশি, গ্রামীণফোন গেম চেঞ্জার, বাংলা ট্র্যাকার, ডানোর বিজ্ঞাপনে দেখা গেছে তামিমকে। বিশ্বকাপ মঞ্চে ধারাবাহিকতা ধরে রাখলে দেশে ফেরার পর তাকে নিয়ে কাড়াকাড়ি পড়ে যাবে নির্মাতাদের মধ্যে, এ নিয়ে সন্দেহ নেই। 

No comments:

Post a Comment