Wednesday, 16 March 2016

‘হিরো’ হতে চাওয়াই জুনায়েদের পরিকল্পনা

‘হিরো’ হতে চাওয়াই জুনায়েদের পরিকল্পনা



নিজে কিছু না করতে পারা, মাদকের ভুল জগতে ঢুকে পড়ে এলোমেলো জীবনযাপন আর হতাশা থেকে মেয়েদের কাছে বাড়তি ‘অ্যাটেনশন’ (মনোযোগ) পেতেই ঠাণ্ডা মাথায় পরিকল্পনা করে কিশোর জুনায়েদ। নুরুল্লাহকে মারধর করা থেকে শুরু করে ফেসবুকে ভিডিও আপ করে ‘হিরো’ হতে চাওয়া সবই তার পরিকল্পনার অংশ বলেই দাবি করছে নুরুল্লাহর বন্ধুরা। তারা বলছে, যেহেতু নুরুল্লাহর সঙ্গে কোনও বিরোধের ক্লু খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না, সেহেতু নুরুল্লাহকে মেরে ভিডিও ছড়িয়ে মেয়েদের সে কত সম্মান করে এটা প্রমাণ করতে চেয়েছিল বলেই আমাদের মনে হচ্ছে।


শুরুতে ফেসবুকে ভিডিও ছড়িয়ে পড়া দেখে মনে হয় মেয়ে বন্ধুকে ঘিরে এক কিশোর মারধর করেছে আরেক কিশোরকে। কেউ একজন সে দৃশ্য ধারণ করেছে। যে মারছে সে ভিডিও ধারণকারীকে নির্দেশনা দিচ্ছে আরেকটু ক্লোজ ভিডিও করার। আর ভিডিও ধারণকারী তাকে আরেকটু আস্তে মারতে বলছে। আর যে মার খাচ্ছে সে পুরো সময়ই ‘কিছু একটা ভুল বুঝাবুঝি’ হচ্ছে দাবি করছে। পরে গত সোমবার সে ঘটনায় ধানমন্ডি থানায় জুনায়েদের নামে একটি মামলাও হয়েছে।
এদিকে তিন দিনেও জুনায়েদের কোনও খোঁজ পায়নি পুলিশ। ধানমন্ডি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নূরে আযম মিয়া বলেন, আমরা তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা করছি। তার বিরুদ্ধে হত্যা চেষ্টা ও আইসিটি অ্যাক্টে মামলা হয়েছে।
ধানমন্ডির বিভিন্ন কলেজ ছাত্রদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, যারা পার্টি করা বা বন্ধুদের সঙ্গে ‘হ্যাং আউট’ এর জীবনযাপনে অভ্যস্ত তারা জুনায়েদকে চেনে। কারণ তার ছোট একটি র‌্যাপ ব্যাণ্ডদল আছে। জুনায়েদ তার বাসার ঠিকানাও একেক সময় একেকরকম বলতো। তবে তার ‘বড়ভাই’দের সঙ্গে যোগাযোগ ভালো এটা সবাইকেই বলতো।

No comments:

Post a Comment